‘আইসিটি’র মৌলিক প্রশিক্ষণ , কম্পিউটার ট্রাবলশুটিং এবং মেইন্টেনেন্স’ বিষয়ক ৫ দিন ব্যাপি কর্মশালা
বরগুনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রাত্যহিক সমাবেশ
বরগুনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রাত্যহিক সমাবেশ
Main Gate of Barguna Polytechnic Institute
Tree Plantation Programme
Refrigeration And Air Conditioning Lab
Refrigeration And Air Conditioning Lab
ucuz elektronik sigara - orjinal elektronik sigara

পাইথন দিয়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

(রচনা ও সংকলন: এস এম আবু সাদাত [ইনসট্রাক্টর, কম্পিউটার টেকনোলজি ], সাইট রেফারেন্স udemy) ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ওয়েব ডেভেলপমেন্ট হল ওয়েব এর জন্য ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন এবং অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেসগুলি তৈরি, তৈরি, স্থাপনের এবং পরিচালনা করার জন্য একক শব্দ। কেন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট গুরুত্বপূর্ণ? 1989 সালে প্রথম ওয়েবসাইট লাইভ হওয়ার পর ওয়েবসাইট ব্যবহারকারীদের সংখ্যা এবং বাস্তবায়নের দক্ষতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট হল এমন ধারণা যা ওয়েবসাইট এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের সাথে জড়িত সকল কার্যক্রমকে…

বৃত্তিমূলক ও কারিগরি শিক্ষা

একটি দেশের উন্নয়নের জন্য দক্ষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জনগোষ্ঠীর প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। পৃথিবীর যে দেশে যত বেশি দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনগোষ্ঠী আছে সেই দেশ তত বেশি উন্নত। মানব সম্পদ যদি ব্যবহারযোগ্য না হয় তবে তার কোন মূল্য নেই। কোন রাষ্ট্রের প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক সম্পদ বা খনিজ সম্পদ থাকলেই, সেই রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক উন্নতি নিশ্চিত হয়না, যদি না ঐ রাষ্ট্র উপযুক্ত পরিকল্পনায় ঐ সম্পদকে ব্যবহার করতে পারে। একইভাবে রাষ্ট্রে অসংখ্য জনগোষ্ঠী থাকলেই রাষ্ট্রের উন্নতি হবে…

Home

বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার গুরুত্ব সহজেই অনুমেয়। সর্বোপরি কারিগরি শিক্ষা ছাড়া অধিক জনশক্তিকে জনসম্পদে রূপান্তর করা অসম্ভব। অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী বলতে স্বনির্ভর অর্থনীতি, যার অর্থ কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ অন্যান্য অভ্যন্তরীণ বিষয়ে উপযুক্ত বিজ্ঞানসম্মত আধুনিক নিজস্ব প্রযুক্তি সম্বলিত উন্নয়ন আবশ্যক, তার ধারাবাহিকতা এবং মাধ্যম হল কারিগরি শিক্ষা। বিশ্বের উন্নত দেশের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নিজেকে দক্ষভাবে গড়ে তুলতে হলে এবং দেশকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী করতে হলে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নাই। তাই কারিগরি শিক্ষার মানোন্নয়নে সামগ্রিভাবেই কাজ করতে হবে।

জনগোষ্ঠীকে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করতে পারলে তারাই হবে দেশের উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি। দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার বিকল্প নাই। দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, আত্ম-কর্মসংস্থান, উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধিতে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার ভূমিকা অপরিসীম।

সে লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ২০০৬ সালে বরগুনা শহরের অদুরে খাগদন নদীর তীরে বরগুনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করে। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠান কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন পরিচালিত হচ্ছে। একাডেমিক প্রোগ্রাম বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের নিয়ন্ত্রণাধীন কাজ করে। বর্তমানে বরগুনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ৫টি ( কম্পিউটার, ইলেকট্রনিক্স, রেফ্রিজারেশন ও এয়রকন্ডিশনিং, এনভায়রনমেন্টাল ও সিভিল ) টেকনোলজির শিক্ষা কার্যক্রম চালু আছে।

দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা শিক্ষার্থীদের পদচারণায় বরগুনা পলিটেকনিকের অঙ্গন হয়েছে মুখরিত। অপেক্ষাকৃত নবীন এ জেলার নাম তারা দেশের মানুষের কাছে বারবার উজ্জ্বল করেছে। শিক্ষার্থিদের নতুন নতুন প্রযুক্তি ও উদ্ভাবণ আবাল-বৃদ্ধ-বনিতার মাঝে কৌতূহল, উৎসাহ আর উদ্দীপনার সৃষ্টি করেছে।